কোন কোর্স টি আপনার জন্য ভালো হবে

যারা নতুন ফ্রীলেন্সিং এ আগ্রহী হচ্ছেন এই আর্টিকেলটি তাদের জন্য । আমাকে সর্বদাই নতুন ছেলে মেয়ে রা, যারা ফ্রীলেন্সিং এই জনপ্রিয় প্ল্যাটফর্মটতে দিন দিন আগ্রহী হয়ে উঠছেন , তারা সবাই কমন একটি প্রশ্ন করে থাকেন ।
প্রশ্নটি হচ্ছে –
আমি ফ্রীলান্সিং করতে চাই আমার জন্য কোন কোর্স টি ভাল হবে?
আমার আজকের এই আর্টিকেলটি দেখে হয়তো আপনি ইনকাম করতে পারবেন না, কিন্তু এই ভিডিওটি দেখে আপনি যা শিখবেন, যা বুঝবেন আর যা জানতে পারবেন, সেটা আপনাকে এই জনপ্রিয় প্লাটফর্ম ফ্রীলান্সিং সম্পর্কে একটা সঠিক ধারনা দিবে। তো আর্টিকেলটি না কেটেই দেখতে থাকুন এবং ফ্রীলান্সিং রিলেটেড নানান আর্টিকেল এর আপডেট তথ্য পেতে আমার চ্যানেল টি সাবস্ক্রাইব করতে পারেন।

এবারে মুল আলোচনায় আসা যাক, তো প্রশ্ন টি ছিল যে আপনি ফ্রীলান্সিং করবেন এবং আপনার জন্য কোন কোর্স টি ভাল হবে?
দেখুন এই প্রশ্ন সম্পর্কে আপনাকে যিনি উত্তর দিবেন বা আপনি যার কাছে এই উত্তরটি আশা করছেন, তাকে আপনার সম্পর্কে কিছু তথ্য আগে আপনাকে দিতে হবে, যদি সেই তথ্য গুলো আপনি তাকে দিতে পারেন , তাহলেই উনি আপনাকে বলতে পারবেন যে আপনার জন্য কোন কোর্স টি ভাল হবে। তো ধরে নেওয়া যাক, আমাকে যে বেক্তিটি প্রশ্ন করেছেন আমি তাকে উত্তরটা দিচ্ছি। তো যে বেক্তি কে আমি উত্তরটা দিব, তাকে আমি যে প্রশ্ন গুলো করব, সেই প্রশ্ন গুলো এখন আপনাদেরকে এখন বলছি।

প্রশ্নঃ১- আপনি কেন ফ্রীলান্সিং করতে চান বা আপনি কেন ফ্রীলান্সিং এ আগ্রহি হলেন?

প্রশ্নঃ২-আপনাকে অনলাইন এর কোন কোন বিষয় গুলো ভাল লাগে বা কোন কোন সেক্টর গুলোতে আপ্নের আগ্রহ বেশি?

প্রশ্নঃ৩-আপনি ফ্রীলান্সিং করে কত টাকা উপার্জন করতে চান?

প্রশ্নঃ৪-আপনি যে পরিমান উপার্জন করতে চান, সেই পরিমান উপার্জন করতে আপনি কি পরিমান খরচ ও সময় দিতে পারবেন?

তো আমি প্রশ্ন গুলো করার পর উনি যে উত্তর গুলো দিয়েছেন, সেগুলো এখন ধারাবাহিক ভাবে বলছি,
উত্তরঃ১-আমি পেপার পত্রিকা এবং খবরের কাগজের মাধ্যমে জানতে পারি যে, এই ফ্রীলান্সিং পেশায় প্রতিমাসে ২০ থেকে ৪০ হাজার টাকা অথবা ৪০ থেকে ৬০ হাজার টাকা উপার্জন করা সম্ভব এবং ঘরে বসেই উপার্জন সম্ভব। তাই চিন্তা করলাম আমিও তাহলে এখান থেকেই শুরু করি।

উত্তরঃ২-আসলে অনলাইনে সম্পর্কে আমার তেমন কোন ধারনা নেই, তবে টুকটাক ফেসবুক চালাতে পারি এবং বিভিন্ন ধরনের কার্টুন দেখতে আমার খুব ভাল লাগে। এছাড়া অনলাইনে আমার তেমন কোন অভিজ্ঞতা নেই।

উত্তরঃ৩-যেহেতু পেপার পত্রিকায় দেখেছি হাজার হাজার ডলার ইনকাম করা যায়, তো আমি যদি ৫০০ ডলার ও ইনকাম করতে পারি , তাহলে সেটাই আমার জন্য যথেষ্ট।

উত্তরঃ৪-চতুরথ নাম্বার প্রশ্নটি শুনে তিনি বেশ অবাক হয়েছেন, উনি আমাকে বললেন, আমি তো শুধু ইনকাম এর কথা চিন্তা করেছি এইখানে আবার খরচ কিসের? আমি তখন উনাকে সহজভাবে কত গুলো ব্যাপার স্পষ্ট করে দিলাম। যেমন আপনি যদি মাসে ৪০ হাজার টাকা উপার্জন করতে চান তাহলে অবশ্যই আপনার কোন একটা স্কিল এর মাধ্যমেই এই ফ্রীলান্সিং এর কাজটা আপনাকে করে অর্থ টা আপনাকে উপার্জন করতে হবে। তাহলে এখন আপনি আমাকে বলুব আপনার মধ্যে এমন কোন নির্দিষ্ট বিষয় এর উপর স্কিল আছে কি না, যেটা কে নিয়ে আপনি ফ্রীলান্সিং করতে পারবেন?

উনি বলল যে না, আমার তো অনলাইন সম্পর্কে তেমন কোন ধারনা নেই, তখনি আমি উনাকে আরও ক্লিয়ার করলাম যে তাহলে ওই নির্দিষ্ট যে বিষয় টির উপর কাজ করে আপনি ফ্রীলান্সিং এর মাধ্যমে উপার্জন করবেন , সেই রিলেটেড বিষয় গুলই আপনাকে আগে প্রশিক্ষণ নিতে হবে।

আসলে এই দোষটি উনার না পেপার পত্রিকা গুলোতে যেভাবে করে ফ্রীলান্সিং এর ইনকাম এর উপর হাইলাইট করা হয়, তাতে করে অনেকেরই ধারণা হয় যে আমি এইখানে আস্লেই ইনকাম করতে পারবো , হে ব্যাপার টা আসলেই ঠিক আপনি আসলেই ইনকাম করতে পারবেন। তবে এই ইনকাম গুলো করার জন্য আপনাকে যথাযথ প্রশিক্ষণ নিতে হবে এবং আপনি যদি ভালভাবে প্রশিক্ষণ নিতে পারেন, তাহলেই আপনার সেই লক্ষ্যটা্তে পৌঁছানো সম্ভব।

তো এখন মুল উত্তরটার দিকে আশা যাক, আমাকে উনাকে উত্তর দিতে হবে যে, উনার জন্য কোন কোর্স টি ভাল হবে। দেখুন ২ নাম্বার প্রশ্নের উত্তর থেকে আমরা উনার কাছে জানতে পেরেছি যে, অনলাইনের মধ্যে উনার যে জিনিষ গুলো সম্পর্কে ধারণা আছে যে উনি টুকটাক ফেসবুক চালাতে পারেন এবং কার্টুন উনার বেশ ভাল লাগে। তাহলে এইখান থেকে আমরা বলতে পারি, যেহেতু ফেসবুক সম্পর্কে পূর্ব ধারণা আছে তাহলে উনার জন্য সবচেয়ে ভাল হবে, উনি ফেসবুক এর মাধ্যমে কিভাবে মার্কেটিং করা যায় এটার উপর যথাযথ ১টা প্রশিক্ষণ নেওয়া এবং পাশাপাশি যেহেতু এনিমেশন এর উপর উনার বেশ ফোকাস সেহেতু এই কার্টুন এনিমেশন গুলো কিভাবে তৈরি করা যায় সেইটার উপর বা ২ডি এনিমেশন এর উপর ১ টা প্রশিক্ষণ নিতে পারেন। তাহলে দেখা যাবে যে ২ডি এনিমেশন এর ১টা ভালভাবে প্রশিক্ষণ নিয়ে উনি যদি কার্টুন তৈরি করা শিখতে পারেন , তাহলে কিভাবে উনি মাসে ৪০ হাজার টাকা বাসায় বসে ইনকাম করতে পারবেন সেই প্ল্যানিং টা আমি আপনাদেরকে জানাচ্ছি। তাহলে এইখানে আমি ২ টি ট্রেনিং পাচ্ছি ১টি হল ফেসবুক মার্কেটিং আর ১টি হল ২ডি এনিমেশন ভিডিও বা কার্টুন এর ভিডিও তৈরি করা শিখতে হবে।

যদি আপনি লক্ষ্য করেন অথবা মার্কেট এর মধ্যে যদি একটু যাচাই করেন তাহলে দেখবেন, বর্তমান সময়ের মধ্যে বা আরও অনেক আগে থেকেই বিভিন্ন ধরনের কোম্পানি গুলো জারা ফেসবুক এর মাধ্যমে বা অনলাইন বিভিন্ন প্লাটফর্ম এর মাধ্যমে নিজেদের প্রোডাক্ট গুলোর বা নিজেদের সার্ভিস গুলোর প্রোমোশন বা কোম্পানির প্রোমোশন এই ধরনের প্রমোশনাল ভিডিও গুলোর মধ্যে ব্যাপকভাবে এনিমেশন এর কাজ লক্ষ্য করা যায়, আপনি আরও একটা জিনিস লক্ষ্য করবেন্ সেটা হচ্ছে ২ডি এনিমেশনের যে ব্যাবহার গুলো আছে এই রিলেটেড যে ভিডিও গুলো আছে, এই ভিডিও গুলো মার্কেটের মধ্যে অনেক কোম্পানি আছে যারা কিন্তু ভিডিও গুলো সেল করছেন বা এনিমেশন এর কাজ বিক্রি করছেন বা কার্টুন দিয়ে বিজ্ঞাপন প্রোমোশন করে সেল করছেন , এই ধরনের ভিডিও গুলো আপনি মার্কেট যাচাই করে দেখতে পারবেন, এই ভিডিও গুলো সর্বনিম্ন ৪০ সেকেন্ড থেকে ১ মিনিট ৩০ সেকেন্ডের ভিডিও গুলো সর্বনিম্ন ৫হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে , তাহলে দেখা যায় কোন একজন বেক্তি বা যে বেক্তির কথা আমরা বলছি উনার আগ্রহ যদি কার্টুন এর উপর থেকে থাকে আর উনি যদি এই কার্টুন এর উপর একটা ভাল্ভাবে প্রশিক্ষণ নিতে পারে এবং এই কাজ গুলো কে মনোযোগের সাথে উনি যদি কাজ গুলো শিখে থাকেন, কাজ গুলো যদি করেন , এনিমেশন এর সম্পূর্ণ কাজ গুলো করার পর বা শেখার পর এইগুলর উপরে উনি কত গুলো ডেমো উনার প্রোফাইল বা প্রটফিলিও হিসাবে উনার কাছে গুছায় রাখবেন, পরবর্তীতে যখন উনি ফেসবুক মার্কেটিং এর আবার ট্রেনিং টা করছেন তখন ফেসবুক মার্কেটিং এর ট্রেনিং টা করে ফেসবুক এর মধ্যে নিজের এই প্রোডাক্ট গুলো কে, নিজের এই প্রটফিলিও গুলোকে বা নিজের এই ছোট ছোট ভিডিও গুলো কে উনি সুন্দর করে উপস্থাপন করলেন এবং সেখানে ফেসবুক দিয়ে মার্কেটিং করলেন। যদি এই রকম টা উনি করতে পারেন তাহলে, যেটা আমরা বললাম যে এই ভিডিও গুলো নিম্ন ৫ হাজার টাকা দিয়ে বিক্রি করা যায় বা ৫ হাজার টাকা দিয়ে সেল করা যায়। তাহলে উনি যদি প্রত্যেক মাসে এইরকম ছোট ছোট ভিডিও তৈরি করে যে ভিডিও গুলো কে উনি প্রোমোশন করবেন, এই প্রোমোশন এর মাধ্যমে বিভিন্ন লক উনার এর ভিডিও গুলো সম্পর্কে জানতে পারবে , ভিডিও গুলো দেখতে পারবে যদি উনার ভিডিও গুলো ক্রিয়েটিভ হয়, ভাল হয় এবং উনি সুন্দর করে করতে পারেন তাহলে অবশ্যই এই সুধু মাত্র ফেসবুক এর মধ্যে উনার এই প্রোডাক্ট গুলো কে প্রোমোশন করার মাধ্যমে উনি এইখান থেকে উনার প্রোডাক্ট গুলোর জন্য কাস্টমার নিয়ে আসতে পারেন। এইভাবে করে দেখা যায় যদি উনি মাসে ৫ থেকে ১০ টা ভিডিও তৈরি করতে পারেন তাহলে আমরা বলেছিলাম যে ওই বেক্তি যেকিনা আমাদের প্রশ্ন গুলোর উত্তর গুলো দিয়েছেন, উনার মান্থলি টার্গেট ছিল ৪০ হাজার টাকা সেক্ষেত্রে আমরা যে ভিডিও গুলো তৈরি করার কথা বললাম, সেই ভিডিও গুলোর মারকেটে সর্বনিম্ন মূল্য হচ্ছে ৫ হাজার টাকা উনি যদি এইরকম ভিডিও বা কার্টুন ভিডিও গুলো বা কার্টুন ব্যাবহার করে বিজ্ঞাপন গুলো তারপর প্রোডাক্ট এর উপর বিজ্ঞাপন গুলো বা সার্ভিস এর উপর বিজ্ঞাপন গুলো কার্টুন কে অ্যাড করে উনি যদি এই ধরনের ভিডিও তৈরি করতে পারে তাহলে এই ভিডিও গুলো যদি উনি মাসে ১০ টা তৈরি করার ক্যাপাসিটি অর্জন করে বা উনি যদি কাজ তৈরি করতে পারে তাহলে কোম্পানি গুলোর কাছে এই ভিডিও গুলো বিক্রি করে উনি অনায়াসে ১০ টা ভিডিও (৫*১০) অর্থাৎ ৫০ হাজার টাকা উনি খুব সহজেই ইনকাম করতে পারবেন।

এটা শুধুমাত্র আমি লোকাল মার্কেট থেকে উনি কিভাবে ইনকাম করতে পারবেন , সেটা উনাকে দেখিয়েছি এটার পাশাপাশিও উনি যেহেতু একজন ফ্রীলান্সার হয়ে গেছেন, উনি এই ফ্রীলান্সিং এর বিভিন্ন ইন্টারন্যাশনাল যে প্লাটফর্ম গুলো আছে, এই প্লাটফর্ম গুলোর মধ্যে উনার সেম প্রটফিলিও টা সেখানেও এস্টাব্লিশ করে উনি সেখান থেকেও ক্লাইন্ট হতে পারেন, মানে হচ্ছে একই ধরনের কাজ উনি লোকাল মার্কেট থেকেও করতে পারছেন আবার উনি ফ্রীলান্সিং এর বিভিন্ন ইন্টারন্যাশনাল প্লাটফর্ম থেকেও করতে পারছেন , তাহলে ওদিক থেকেও ইনকাম হবে আবার এদিক থেকে তো উনি ১০ টা ভিডিও তৈরি করে ৫০ হাজার টাকা ইনকাম করতেই পারছে ।
এইযে সুবিধা লোকাল মার্কেটপ্লেস থেকেও কাজ করতে পারছেন আবার ইন্টারন্যাশনাল মার্কেট থেকেও কাজ করতে পারছেন, এটা ছারাও এখানে আরও কত গুলো ফ্যাসিলিটি আছে, ফ্যাসিলিটি গুলো আমি আপনাদেরকে একটু বলি, যদি উনি এই দুটি ট্রেনিং ভাল মত করতে পারে, পাশাপাশি উনি করতে পারবে কি, অনেক কোম্পানি আছে যারা কিন্তু এখন এই এনিমেশন এর কাজ যারা ভালভাবে জেনে থাকে, উনাদেরকে নিজেদের কোম্পানি গুলো তে নিতে চায় মানে এমপ্লয়ী হিসেবে তাদেরকে নিতে চায়, তাহলে উনি এমপ্লয়ী হিসেবেও কোম্পানি গুলো তে কাজ করতে পারবেন আবার পাশাপাশি বলি যদি যে না, সে বাসায় বসেই ভারটুয়াল হিসেবে কাজ করবে সেটাও উনি বাসায় বসে কাজ করতে পারেন। তার মানে চতুর্দিক দিয়ে তার ইনকামের যে অপরচুনিটি টা সেটা উনার কাছে ঠিক ই ফিরে আসবে।

এখন আমরা আজকের এই আর্টিকেলটি সমাপ্ত করব, আমরা যে রেঞ্জটা দিয়েছিলাম যে, উনার জন্য কোন কোর্সে টা ভাল হবে এবং উনি যেহেতু মাসে ৪০ হাজার টাকা ইনকাম করতে চান আমরা আমরা আপনাদেরকে খুব সহজেই সেগুলো দেখিয়ে দিয়েছি, এবার আপনারাই উপলব্ধি করুন আমি যে কথা গুলো বলেছি সেই কথা গুলো আদৌ এই জিনিস গুলোর ক্ষেত্রে ঠিক হবে কিনা , এই বিবেচনা টা আপনি করতে পারেন। আর আমি তো এই ফিল্ড নিয়েই কাজ করি, হরহামেশাই কাজ করি, এইজন্য আমার কাছে এই জিনিস টা জেভাবেই সহজ আমি ঠিক সেভাবে করেই আপনাদের কাছে উপস্থাপন করেছি।

তো আর কথা না বাড়াই , আপনার কাছে যদি মনে হয়, আপনারও ভিন্ন কোন ধরনের বা অনলাইনের প্রতি আগ্রহ আছে, আপনি সেটা আমাদেরকে কমেন্ট করে জানাতে পারেন। আমি যে প্রশ্ন গুলো করেছি, সেই প্রশ্নগুলোর উত্তর ও আপনি আপনার মত করে দিতে পারেন। অবশ্যই আমি আপনাকেও জানাব যে, আপনার জন্য কোন কোর্স টি ভাল হবে এবং সেই কোর্স থেকে আপনি কিভাবে করে নিজেকে ফ্রীলান্সিং মার্কেট প্লেস এর মধ্যে উন্নতি করতে পারবেন বা কত টাকা ইনকাম করতে পারবেন।
সবাইকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি আর্টিকেলটা এত সময় নিয়ে দেখার জন্য, পরবর্তীতে আবারও কোন বিষয় নিয়ে আপনাদের সামনে হাজির হবো, আবারও কোন নতুন বিষয় সম্পর্কে আপনাদেরকে জানাবো, ততদিন পর্যন্ত ভাল থাকবেন সবাই দেখা হবে। খোঁদা হাফেজ।।

Leave a comment

Your email address will not be published.